Breaking News

বাংলাদশের সর্বকালের সেরা টেস্ট একাদশ দেখে নিন

ক্রিকেটের সবচেয়ে পুরনো এবং ধ্রুপদী ধরন হল টেস্ট ক্রিকেট। গত দুই দশকে বাংলাদেশের হয়ে অনেক খ্যাতিমান টাইগাররা ব্যাট এবং বল হাতে খেলেছেন। এ পর্যন্ত সর্বমোট ৯৮ জন খেলোয়াড় বাংলাদেশের হয়ে ক্রিকেটের টেস্ট সংস্করণে অংশ নিয়েছেন। তাই সহজেই সেরা ১১ জন খেলোয়াড়ের নাম নেয়াটা অতটা সহজ নয়। তবে ক্রিকেটারদের পরিসংখ্যান অনুযায়ী বাংলাদেশের টেস্ট ক্রিকেটর সেরা ১১ তারকার নাম উল্লেখ করা যেতেই পারে। চলুন দেখে নেই বাংলাদেশে টেস্ট ক্রিকেটর সর্বকালের সেরা ১১ টেস্ট ক্রিকেটারদের তালিকা।

১) তামিম ইকবাল-: ৬৪টি টেস্ট খেলা তামিম ইকবাল সর্বোচ্চ ৪ হাজার ৭৬৪ রান নিয়ে তালিকার শীর্ষ স্থান দখল করেছেন। সর্বোচ্চ ২০৬ রান এবং ৯টি শতকের অধিকারী তিনি। বাংলাদেশের সর্বকালে সেরা ওপেনিং ব্যাটসম্যান হিসেবেও তাকে গণ্য করা হয়।

২) ইমরুল কায়েস-: টেস্টে ৩৯টি ম্যাচ খেলা এবং ১ হাজার ৭৯৭ রানের মালিক ইমরুল কায়েস দ্বিতীয় স্থানে জায়গা করে নিয়েছেন। মাত্র তিনটি শতকের দেখা পাওয়া এই ব্যাটারের সর্বোচ্চ রান ১৫০। বাংলাদেশের হয়ে তামিমের সাথে উদ্বোধনী জুটিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে সর্বোচ্চ ৩১২ রানের পার্টনারশিপ গড়েন এই ক্রিকেটার।

৩) মুমিনুল হক-: বাংলাদেশ টেস্ট ক্রিকেট দলের বর্তমান দলপতি মুমিনুল এই অবস্থানে আছেন ৪৪টি ম্যাচ এবং ৩ হাজার ২৪৭ রানের সুবাদে। তার সর্বোচ্চ রান ১৮১ এবং মোট শতকের সংখ্যা ১১টি।

৪) মুশফিকুর রহিম-: মিডল অর্ডারে সবচেয়ে ভরসার জায়গায় আছেন মুশফিকুর রহিম। তার ঝুলিতে আছে ৭৪ ম্যাচ, ৪ হাজার ৬৪৫ রান এবং ৭টি শতক। তার সর্বোচ্চ রান ২১৯ (অপরাজিত)।

৫) মোহম্মাদ আশরাফুল-: বিতর্কিত ও সমালোচিত এই প্লেয়ারকে নিয়ে অনেক কথা হতে পারে, কিন্তু টেস্টে তার প্রয়োজনীয়তা অনস্বীকার্য। ৬১ ম্যাচ খেলা আশরাফুলের মোট রান ২ হাজার ৭৩৭ এবং সর্বোচ্চ রান ১৯০। অপরদিকে সবচেয়ে কম বয়সে টেস্ট শতকের রেকর্ডটি’ও তার দখলে।

৬) সাকিব আল হাসান-: বাংলাদেশ সেরা টেস্ট একাদশে ষষ্ঠ অবস্থানে আছেন বিশ্ব সেরা অলরাউন্ডার সাকিব। ৫৭ ম্যাচে ৩ হাজার ৯৩০ রান, সর্বোচ্চ ২১৭ রান এবং ৫টি টেস্ট শতক আছে তার ঝুলিতে। এছাড়াও টেস্ট ক্রিকেটে সর্বোচ্চ ২১০ উইকেট সংগ্রহের রেকর্ডও আছে তার ঝুলিতে।

৭) মোহম্মদ রফিক-: নব্বই দশকের জনপ্রিয় এই স্পিনার বাংলাদেশের হয়ে সর্বপ্রথম টেস্টে ১০০ উইকেট শিকার করতে সক্ষম হন। ৩৩ ম্যাচ খেলে ১ হজার ৫৯ রান এবং সর্বোচ্চ ১১১ রান করা এই ক্রিকেটার মিডল অর্ডারের অন্যতম ভরসাদায়ক খেলোয়াড় ছিলেন।

৮) মেহেদি হাসান মিরাজ-: ২৬ টেস্ট খেলা ৮৫৫ রানের অধিকারী মিরাজকে এই তালিকায় একজন অলরাউন্ডার হিসেবেই যুক্ত করা হয়েছে। সর্বোচ্চ ১০৩ রান এবং এ পর্যন্ত ১০৩ উইকেট শিকার করেছে এই তরুণ ক্রিকেটার।

৯) মাশরাফি বিন মর্তুজা-: টেস্টে বাংলাদেশের পেস আক্রমণের জন্য প্রথম নামটি ই হবে মাশরাফির। দেশের প্রকৃত এই পেইসার ১৪০ কি.মি ঘণ্টায় বল ছুড়তে পারেন। ৩৬ টেস্টে এ পর্যন্ত ৭৮ উইকেট নিয়েছেন সাবেক টাইগার দলপতি।

১০) তাইজুল ইসলাম-: বাংলাদেশের টেস্ট ক্রিকেটে দ্বিতীয় সফল বোলার হল তাইজুল ইসলাম। ৩৩ ম্যাচ খেলা এই স্পিনার ১৩০ উইকেট নিয়েছেন। অপরদিকে বাংলাদেশের হয়ে এক ইনিংসে ৩৯ রান দিয়ে ৮ উইকেট শিকারের রেকর্ডটিও আছে তার দখলে।

১১) শাহাদাৎ হোসেন-: ৩৮ ম্যাচ খেলে ৭২ উইকেট নেয়া শাহাদাতকে মাশরাফির পরই সেরা ফাস্ট বোলার হিসেবে গণ্য করা হয়।যদিও অনেক বড় তারকা খেলোয়াড়রা এই তালিকায় নেই। তবে নিজেদের ব্যক্তিগত রেকর্ডের কারণে এই তালিকায় অবস্থান জমিয়ে নিয়েছেন সেরা টেস্ট টাইগাররা।

About admin

Check Also

আমি কী এতোটাই খারাপ ? একাদশে ডাক না পেয়ে হতাশ কুলদীপ

দেশের প্রথম চায়নাম্যান বোলারকে নিয়ে ভারতীয় ক্রিকেটের প্রত্যাশা কম ছিল না। সেই প্রত্যাশার সঙ্গে পাল্লা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *