বিশ্বকাপজয়ী দলের সদস্য হতে না পারেনি যে বিখ্যাত ক্রিকেটাররা

ক্রিকেট মানে অনিশ্চয়তার খেলা! ইতিহাস ঘাঁটলে দেখা গেছে এমন অনেক ক্রিকেটীয় দল রয়েছে যারা বিশ্বকাপের টুর্নামেন্ট দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করা সত্ত্বেও শেষপর্যন্ত ফাইনাল ম্যাচে পরাজিত হয়েছে। আর সেই পরাজিত দলের কয়েকজন বিখ্যাত ক্রিকেটারদের নিয়ে একাদশ গঠিত হলো, যারা কখনো চ্যাম্পিয়ন দলের সদস্য হতে পারেননি। এবার দেখে নেওয়া যাক, বিশ্বকাপজয়ী দলের সদস্য হতে না পারা সেই বিখ্যাত ক্রিকেটারের নিয়ে গঠিত হওয়া একাদশ (এখানে কেবল প্রাক্তন ক্রিকেটার দের নিয়েই দল গঠিত হয়েছে):-

ওপেনার: সৌরভ গাঙ্গুলী ও ব্রায়ান লারা-ঃ ২০০৩ বিশ্বকাপে সৌরভ গাঙ্গুলীর নেতৃত্বে ভারতীয় দল দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করে। ওই টুর্ণামেন্টে সৌরভ গাঙ্গুলীর ব্যাট থেকে এসেছিল তিনটি শতরান। কিন্তু ফাইনালে উঠলেও দুর্ভাগ্যবশত অস্ট্রেলিয়ার কাছে পরাজিত হয়। ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল এক বিরল প্রজাতির ব্যাটসম্যান পেয়েছিল যাকে বিপক্ষ দল স্লেজিং করতেও ভয় পেত। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত ব্রায়ান লারা কখনও চ্যাম্পিয়ন দলের সদস্য হতে পারেননি।

মিডল অর্ডার: কুমার সাঙ্গাকারা, এবি ডি ভিলিয়ার্স, রাহুল দ্রাবিড় ও ব্রেন্ডন ম্যাককুলাম-ঃ ২০১১ বিশ্বকাপে কুমার সাঙ্গাকারার নেতৃত্বে শ্রীলঙ্কা ফাইনালে উঠে কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত পরাজিত হয়। এরপর ২০১৫ বিশ্বকাপেও তার ব্যাট থেকে টানা ৪টি সেঞ্চুরি এসেছিল, কিন্তু কখনোই বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্ন তার পূরণ হয়নি।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিখ্যাত ক্রিকেটার এবি ডি ভিলিয়ার্স এর নেতৃত্বে ২০১৫ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে পৌঁছেছিল দল। কিন্তু নিউজিল্যান্ডের কাছে পরাজিত হয়ে অশ্রুজলে তাদের বিদায় নিতে হয়েছিল।

বিশ্বের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান রাহুল দ্রাবিড় ভারতের হয়ে তিনটি বিশ্বকাপ খেলেছেন, দুর্ভাগ্যবশত কখনোই চ্যাম্পিয়ন দলের সদস্য হতে পারেননি। ১৯৯৯ বিশ্বকাপে তার দুরন্ত পারফরমেন্সে টুর্নামেন্টের সেরা হয়েছিলেন।

২০১৫ বিশ্বকাপে ব্রেন্ডন ম্যাককুলামের নেতৃত্বে নিউজিল্যান্ড ফাইনাল ওঠে। ওই টুর্ণামেন্টে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করেছিল কিউই দল। কিন্তু ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হয়ে পরাজিত হয়।

অলরাউন্ডার: জ্যাক ক্যালিস ও ল্যান্স ক্লুজনার-ঃ সর্বকালের সেরা অলরাউন্ডারদের মধ্যে জ্যাক ক্যালিস অন্যতম। দুর্ভাগ্যবশত, দক্ষিণ আফ্রিকার দুর্দান্ত ক্রিকেটার থাকা সত্ত্বেও কখনোই তারা বিশ্বকাপজয়ী দলের সদস্য হতে পারেনি।

১৯৯৯ বিশ্বকাপে টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড় ল্যান্স ক্লুজনারও এই তালিকায় সামিল হয়েছেন। ওই বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে তিনি একাই লড়ে যান কিন্তু শেষ পর্যন্ত তার দলকে সঠিক জায়গায় পৌঁছে দিতে ব্যর্থ হন।

বোলার: শন পোলক, অনিল কুম্বলে ও শোয়েব আখতার-ঃ বিশ্বকাপ জিততে না পারা অন্যতম ট্রাজিক হিরো শন পোলক। তার নেতৃত্বে দক্ষিণ আফ্রিকা দল সবচেয়ে শক্তিশালী হয়ে উঠেছিল। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত বিশ্বকাপের মঞ্চে বারবার ব্যর্থ হয়েছেন তিনি।

সৌরভ গাঙ্গুলীর মতই আরো এক বিখ্যাত ভারতীয় ক্রিকেটার অনিল কুম্বলে কখনোই বিশ্বকাপ জয়ী দলের সদস্য হতে পারেননি। ভারতের হয়ে সর্বোচ্চ উইকেট শিকার করেছেন তিনি।

বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুতগতির বোলার শোয়েব আখতারও এই তালিকা সামিল হয়েছেন। ১৯৯৯ বিশ্বকাপে তার দল ফাইনালে উঠলেও অস্ট্রেলিয়ার কাছে পরাজিত হয়ে বিদায় নেয়।

About admin

Check Also

১৬ বছর বয়সেই জাতীয় দলে ডাক পেল নুর আহমেদ

সবশেষ ওয়ানডে সিরিজে ছিলেন আফগানিস্তানের অধিনায়ক। এরপর হারান নেতৃত্ব। এবার আসগর আফগানকে ছাড়াই পাকিস্তান সিরিজের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *