যে ৫ বিখ্যাত ক্রিকেটার অবসর ভেঙে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরে এসেছিলেন

দক্ষিণ আফ্রিকার কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান এবি ডি’ভিলিয়ার্স (AB de Villiers) স্পষ্ট করে জানিয়ে দিয়েছেন তাঁকে অবসর ভেঙে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দেশের প্রতিনিধিত্ব করতে আর দেখা যাবে না। ডি’ভিলিয়ার্স না ফিরলেও ক্রিকেটের ইতিহাসে এমন বহু জনপ্রিয় ক্রিকেটার আছেন, যাঁরা অবসর ভেঙে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরে এসেছিলেন। এমনই পাঁচজন জনপ্রিয় ক্রিকেটারের সম্বন্ধে আজ জেনে নেওয়া যাক।

শাহিদ আফ্রিদি (Shahid Afridi)-: ‘কিং অফ কামব্যাকস’ নামে পরিচিত পাকিস্তানের তারকা অল-রাউন্ডার শাহিদ আফ্রিদি। ক্যারিয়ারে একাধিকবার অবসর ভেঙে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরে এসেছিলেন তিনি। ক্যারিয়ারে পাঁচ বার আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছেন এবং তারমধ্যে চার বার অবসর ভেঙে ফিরে এসেছিলেন তিনি। ২০১৭ সালে পাকাপাকিভাবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানানোর পর বর্তমানে তিনি বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট লিগের শরিক। পাকিস্তানের সর্বকালের সেরা অল-রাউন্ডারদের মধ্যে একজন আফ্রিদি নিজের ক্যারিয়ারে দেশের হয়ে ২৭টি টেস্ট, ৩৯৮টি একদিনের ম্যাচ এবং ৯৯টি টি-২০ ম্যাচ খেলেছেন।

ডোয়েন ব্র্যাভো (Dwayne Bravo)-ঃ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিখ্যাত অল-রাউন্ডার ডোয়েন ব্র্যাভো ২০২০ সালে নিজের অবসর ভেঙে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আবার প্রত্যাবর্তন করেছেন এবং আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে টি-২০ সিরিজে অংশ নিয়েছেন। তিনি ২০১৮ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরের কথা ঘোষণা করেছিলেন, কিন্তু অল্প সময়ের মধ্যেই আবার কামব্যাক করেন। আসন্ন টি-২০ বিশ্বকাপেও দেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করতে আগ্রহী, এমন ইঙ্গিতও তিনি দিয়েছেন।

কেভিন পিটারসেন (Kevin Pietersen)-ঃ ইংল্যান্ডের প্রাক্তন তারকা ব্যাটসম্যান কেভিন পিটারসেনও নিজের অবসর ভেঙে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের মঞ্চে প্রত্যাবর্তন করেছিলেন। পিটারসেন ২০১১ সালে একদিনের ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছিলেন শুধুমাত্র টেস্ট ক্রিকেটের ওপর ফোকাস করতে। কিন্তু পরে সীমিত ওভারের ক্রিকেটে ইংল্যান্ড দলের স্কোয়াডে তাঁর নাম থাকলে তিনি অবসর ভেঙে আবার ফিরে আসেন। পিটারসেন দেশের হয়ে ১০৪টি টেস্ট ম্যাচে ৮,১৮১ রান, এবং ৮৬টি একদিনের ম্যাচে ৪,৪৪০ রান করেছেন।

কার্ল হুপার (Carl Hooper)-ঃ ওয়েস্ট ইন্ডিজের তারকা ক্রিকেটার কার্ল হুপার বিশ্বের প্রথম ক্রিকেটার যিনি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৫,০০০ রান, ১০০টি উইকেট, এবং ১০০টি ক্যাচ নিয়েছেন। কার্ল ১৯৯৯ বিশ্বকাপের কিছু সময় আগেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নিজের অবসর গ্রহণের কথা ঘোষণা করেন। কিন্তু ২০০১ সালে তিনি নিজের অবসর ভেঙে আবার ফিরে আসেন। ২০০৩ বিশ্বকাপে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের অধিনায়কত্বও করেছিলেন তিনি।

ইমরান খান (Imran Khan)-ঃ পাকিস্তানের তারকা অল-রাউন্ডার এবং সেদেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ১৯৮৭ বিশ্বকাপের পর অবসর গ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। তবে পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী জিয়া উল-হকের অনুরোধে তিনি আবার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের মঞ্চে প্রত্যাবর্তন করেছিলেন এবং ১৯৯২ সালে অধিনায়কত্ব করে দেশকে বিশ্বকাপ এনে দিয়েছিলেন।কলকাতা২৪x৭

About admin

Check Also

এই ৫ ক্রিকেটার ওয়ানডেতে সর্বাধিক বার রান আউট হয়েছে

ক্রিকেটে অন্যান্য আউট গুলির মধ্যে রান আউট হওয়া সবচেয়ে বড় হতাশাজনক। কোনো ব্যাটসম্যানই এটি পছন্দ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *