দেশে ও বাইরের ব্যাটসম্যানদের মধ্যাকার পার্থক্য দেখালেন লিটন দাস

মহামারীর বিরতি শেষে ক্রিকেটে ফেরার পরও ছন্দে ছিলেন না। তবে জিম্বাবুয়ে সফরে সেঞ্চুরি করে নিজেকে ফিরে পাওয়ার আভাস দেন লিটন দাস। পারিবারিক কারণে অস্ট্রেলিয়া সিরিজে না খেললেও ছিলেন নিউজিল্যান্ড সিরিজে। আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপই হবে এই সংস্করণে তাঁর প্রথম বিশ্বকাপ। সম্প্রতি দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে কথা বলেছেন তাঁর বিশ্বকাপ ভাবনা নিয়ে—

মিরপুরের উইকেটে খেলে ব্যাটসম্যানদের মধ্যে যে আড়ষ্টতা তৈরি হচ্ছে, সেটা নিয়ে বিশ্বকাপে ধারাবাহিকভাবে রান করা সম্ভব কিনা এমন এক প্রশ্নের জবাবে লিটন বলেন, মিরপুরের উইকেট সব সময়ই চ্যালেঞ্জিং। এখন ওয়ানডে ক্রিকেটে কোনো জায়গায় তিন শ’র নিচে রান হয় না। যে তিন শ’র নিচে রান করে সেই দল হারে। একমাত্র দেশ বাংলাদেশ, একমাত্র ভেন্যু মিরপুর, যেখানে আপনি ২৪০-২৫০ রান করলেও প্রতিযোগিতায় থাকেন। এমনকি জিতেও যেতে পারেন।

এখানে ব্যাটসম্যানরা অনেক শট খেলতে পারে না। খেলতে হয় ধৈর্য নিয়ে। আপনি ভালো উইকেটে খেললে শট খেলার সামর্থ্য দিন দিন বাড়বে। এখানে তো আমাদের শট সীমিত। আমাদের ও বাইরের দেশের ক্রিকেটারদের মধ্যে পার্থক্য এটাই। তাঁরা দিন দিন শট খেলার সামর্থ্য বাড়াচ্ছে। আর আমাদের কমছে। ওরা যেমন আত্মবিশ্বাস নিয়ে শট খেলে, আমরা ওই সব খেলতে গেলে থাকি দ্বিধাদ্বন্দ্বে।

About ashik rakib

Check Also

মোস্তাফিজ-আফিফকে বাংলাদেশের তুরুপের তাস মানছে আইসিসি

আর মাত্র এক দিন বাকি বাংলাদেশের বিশ্বকাপ মিশন শুরু হতে। আগামীকাল ওমানের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *