মেসিকে টপকে ব্যালন ডি’অর জিততে পার লিওয়ানদোস্কি

আগামীকাল ঘোষণা করা হবে ফুটবলের এই প্রজন্মের সবচেয়ে মর্যাদাকর পুরস্কার ব্যালন ডি’অর বিজয়ীর নাম। গত বছর মহামারীর কারণে বাতিল হয়ে যাওয়ায় এবারের আয়োজন নিয়ে রয়েছে বাড়তি উত্তেজনা। বিশেষ করে টানা এক দশক এই পুরস্কারটিকে নিজেদের সম্পদ বানিয়ে ফেলা লিওনেল মেসি ও ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডোকে ছাপিয়ে সবচেয়ে বেশী যে নামটি উচ্চারিত হচ্ছে তিনি হলেন বায়ার্ন মিউনিখের পোলিশ তারকা রবার্ট লিওনদোস্কি। গতবার বাতিল না হলে নিশ্চিতভাবেই ব্যালন ডি’অর জয় করতেন লিওয়ানদোস্কি।

কারণ গত মৌসুমে বুন্দেসলিগায় মাত্র ২৯ ম্যাচে করেছিলেন রেকর্ড সর্বোচ্চ ৪১ গোল। ২০২০ সালে ফিফা বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার ছিনিয়ে নিয়েছিলেন ৩৩ বছর বয়সী এই পোলিশ স্ট্রাইকার। নতুন মৌসুমেও তিনি ছন্দে থেকে কোচ জুলিয়ান নাগলসম্যানকে স্বস্তি এনে দিচ্ছেন।

এবারের মৌসুমে ইতোমধ্যেই ২০ ম্যাচে করেছেন ২৫ গোল। জার্মান কিংবদন্তী গার্ড মুলারও বলেছেন, ‘সোমবার এই পুরস্কারটা লেভারই পাওয়া উচিৎ। কারণ সবাই দেখছে এই মুহূর্তে সে কতটা ছন্দে রয়েছে।’

গত এক দশকে ১২টি ব্যালন ডি’অরের মধ্যে ১১টি মেসি ও রোনাল্ডো একে অপরের মধ্যে ভাগাভাগি করে নিয়েছেন। রিয়াল মাদ্রিদকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপা ও ক্রোয়েশিয়াকে বিশ্বকাপের ফাইনালে খেলতে সহযোগিতা করার জন্য ২০১৮ সালে লুকা মড্রিচ পেয়েছিলেন ব্যালন ডি’অর।

যদিও এবারো মেসিকে নিয়ে চলছে জোড় আলোচনা। ক্যারিয়ারের নতুন সিদ্ধান্তে পিএসজিতে পাড়ি জমানোর আগে গত মৌসুমে শৈশবের ক্লাব বার্সেলোনার হয়ে লা লিগায় করেছেন ৩০টি গোল। বাড়তি পাওনা হিসেবে আর্জেন্টিনার অধিনায়ক হিসেবে পেয়েছেন কোপে ডেল রে শিরোপা। জুলাইয়ে মারাকানা স্টেডিয়ামে চির প্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলকে পরাজিত করে কোপার শিরোপা জিতেছিল আর্জেন্টিনা। এর মাধ্যমে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ২৮ বছরের শিরোপা খরা কাটিয়েছে আর্জেন্টাইনরা।

এ পর্যন্ত রেকর্ড ৬টি ব্যালন ডি’অর শিরোপা বিজয়ী মেসি তার এই সংখ্যা বাড়ানোর দ্বারপ্রান্তে রয়েছেন।কাতালান ডেইলি স্পোর্টকে সম্প্রতি মেসি বলেছেন, ‘আমার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বড় পুরস্কার হচ্ছে জাতীয় দলের হয়ে কিছু অর্জন করা। এই শিরোপার জন্য আমাদের দিনের পর দিন অপেক্ষা করতে হয়েছে। এটা আমার ক্যারিয়ারের সেরা পুরস্কার। তবে এর সাথে যদি ব্যালন ডি’অর আসে তবে সেটা হবে বাড়তি পাওনা। বিশেষ করে সাতটি ব্যালন ডি’অর পাওয়া সত্যিই বিশেষ কিছু।’

৩০ জনের সংক্ষিপ্ত তালিকায় থাকা ইউরো ২০২০ বিজয়ী ইতালির পাঁচজন সদস্যের মধ্যে অন্যতম হলেন চেলসি মিডফিল্ডার জর্জিনহো। এছাড়া নেইমার ও লিভারপুলের মিশরীয় তারকা মোহাম্মদ সালাহর সাথে রয়েছেন কিলিয়ান এমবাপ্পে ও আর্লিং ব্রট হালান্ট।- বাসস

About রাসেল আহমেদ

Check Also

নেইমারের জীবনী-ঃ নিন্দুকদের দৃষ্টিভঙ্গি পাল্টে দিবে

ক্রিকেট ফুটবলে ঝেলোয়াড়দের বায়োগ্রাফী নিয়ে সিনেমা, ডকুমেন্টারি নতুন কিছু নয়। তবে এবার ব্রাজিলিয়ান তারকা নেইমারের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *